আবরার ফরহাদকে খুনের অপরাধে ছাত্রলীগের শীর্ষ ২ নেতাকে জিজ্ঞেসবাদ!

সাখাওয়াত ফারহান ||

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদকে পিটিয়ে হত্যার ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের দুই নেতাকে আটক করেছে পুলিশ। আজ সোমবার সকালে তাদের আটক করে চকবাজার থানায় নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে চকবাজার থানার ওসি সোহরাব হোসেন বলেন, ফুয়াদ ও রাসেলকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় আনা হয়েছে। আটককরা হলেন বুয়েট শাখা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি মুহতাসিম ফুয়াদ ও সাধারণ সম্পাদক মেহেদী হাসান রাসেল। তারা বুয়েটের সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের শিক্ষার্থী এবং শেরে বাংলা হলের আবাসিক ছাত্র।
এদিকে বুয়েটের তড়িৎ ও ইলেকট্রনিক প্রকৌশল বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের (১৭ তম ব্যাচ) শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদকে শিবির তকমা দিয়ে পিটিয়ে হত্যা প্রতিবাদে আজ সোমবার রাজু ভাস্কর্য থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের করেছে সাধারণ শিক্ষার্থীরা।

অন্যদিকে ফাহাদের ফেসবুকে ‘বিতর্কিত’ পেজে লাইক দেয়া এবং তার শিবির সম্পৃক্ততার ‘প্রমাণ পাওয়ার’ দাবি করে ছাত্রলীগের সহ-সম্পাদক আশিকুল ইসলাম বিটু বলেছেন, ‘প্রমাণ পাওয়ার পর চতুর্থ বর্ষের ভাইয়েরা খবর পেয়ে সেখানে আসেন। আমি রুম থেকে বেরিয়ে আসার পর হয়তো ওরা মারধর করে থাকতে পারে। পরে রাত ৩টার দিকে শুনি ফাহাদ মারা গেছে।’
শেরে বাংলা হলের শিক্ষার্থীরা জানান, রোববার সন্ধ্যা সাতটার দিকে একই বর্ষের কয়েকজন ছাত্র ফাহাদকে ডেকে নিয়ে যায়। এরপর আর তার কোনো খোঁজ ছিল না, রাত ২টার দিকে হলের সিঁড়িতে তার মরহেদ পড়ে থাকতে দেখা যায়। এ সময় তার শরীরে আঘাতের অনেক চিহ্ন ছিল।