ছাড়পত্রবিহীন কারখানা ও স্থাপনা বুড়িগঙ্গা নদীর দুই পাড়ে বন্ধ করতে নির্দেশ দিয়েছে হাইকোর্ট

নিজেস্ব প্রতিবেদন || ইমাম হোসেন শরীফ :

পরিবেশগত ছাড়পত্রবিহীন যেসব কারখানা ও স্থাপনা বুড়িগঙ্গা নদীর দুই পাড়ে রয়েছে সেগুলো বন্ধ করে দেওয়ার জন্য পরিবেশ অধিদপ্তরকে নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। এই নির্দেশ বাস্তবায়ন করে পরিবেশ অধিদপ্তরকে আগামী ৮ জানুয়ারি এ ব্যাপারে হাইকোর্টে পূর্ণাঙ্গ প্রতিবেদন দেওয়ারও নির্দেশ দেওয়া হয়। একই দিনে বুড়িগঙ্গার সঙ্গে যুক্ত ড্রেন ও সুয়ারেজ লাইনগুলো পুরোপুরি বন্ধ করে দেওয়ার অগ্রগতির প্রথম প্রতিবেদন দেওয়ার জন্য আদেশ দেওয়া হয়েছে ঢাকা ওয়াসাকে। এ সংক্রান্ত একটি রিট আবেদনের শুনানি করে বিচারপতি গোবিন্দ চন্দ্র ঠাকুর ও বিচারপতি মোহাম্মদ উল্লাহ এই আদেশ দেন। দিনের অগ্রভাগে পরিবেশ অধিদপ্তর হাইকোর্টকে জানান যে বুড়িগঙ্গা নদীর দক্ষিণ পাড়ে অবৈধভাবে পরিচালিত ৫২টি কারখানা নদীর পানিতে বর্জ্য ফেলে দূষণ ঘটাচ্ছে। এই কারখানাগুলোর পরিবেশগত ছাড়পত্র ও তরল বর্জ্য শোধনাগার বা ইটিপি প্ল্যান্ট নেই। নদীটির উত্তর পাড়েও কিছু কারখানা অবৈধভাবে চলছে। হাইকোর্টের আগের নির্দেশ অনুযায়ী এই কারখানাগুলোর বিরুদ্ধে তদন্ত চলমান রয়েছে বলে পরিবেশ অধিদপ্তরের পক্ষ থেকে জানানো হয়। ২০১৭ সালে এ রকম ২৭টি কারখানা ও এ বছর ১৮টি কারখানা বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে বলেও প্রতিবেদনে জানায় পরিবেশ অধিদপ্তর।