জমতে শুরু করেছে যশোরের ঈদ বাজার!

নিজস্ব প্রতিবেদক।। রবিন ঃ
কত ডিজাইনের পোশাকই না ঈদে আসে। বিশেষ করে তরুণীদের জন্য। পাকিস্থানি, পাঠান, রাইকিশোরী, কাটাপ্পা, জলনূপুর, পাখি ড্রেস, কটকটি, কিরণমালাসহ কতইনা পোশাক। তবে এসবের স্থানে দখল করেছে অন্য নামের পোশাক। এবার তরুণীরা গাউন, গারারা ও মাসাক্কালি’র দিকে ঝুঁকছে। দোকানিরাও হাকাচ্ছে এসব পোশাকের নাম। এবার ঈদের বাজারে প্রভাব পড়ছে গরমের। সবাই গরমের দিকটা লক্ষ্য করেই পোশাকের গুণ বিচার করছে। বিভিন্ন ডিজাইন ও স্টাইলকে সামনে রেখে হালকা কাপড়ের পোশাক কিনতে দেখা যাচ্ছে ক্রেতাদের।

যশোরের বড় বড় শপিংমল, শো’রুম কিংবা স্থানীয়ভাবে গড়ে ওঠা দোকান সবখানেই এবার বিভিন্ন মডেল ও ডিজাইনের কাপড় ও কোয়ালিটির গাউন পাওয়া যাচ্ছে। প্রিন্ট ও এক কালারের লিলেন, ভয়েল, জর্জেট অথবা নেটের উপরে তৈরি করা হয়েছে এসব ওয়ান পিস। ঢিলে ঢালা পোশাকটি এই গরমের ঈদ ফ্যাশনে তরুণীদের কিছুটা হলেও স্বস্তি দেবে বলে মনে করছেন ক্রেতা-বিক্রেতারা। গাউনের পাশাপাশি ঈদ বাজারে রয়েছে টু-পিস, থ্রি-পিস। বেশি বিক্রি হচ্ছে বিভিন্ন স্টাইলের মাসাক্কালি। এছাড়া পাওয়া যাচ্ছে বিভিন্ন ডিজাইনের লং কামিজ, ফ্লোর টাস, লেহেঙ্গা এবং সূচিশিল্প, কারচুপি ও এ্যাম্বয়াডারির তৈরি জর্জেট ও সূতি দেশিবিদেশি থ্রি-পিস। শহরের কাপুড়িয়াপট্টি গবিন্দ স্টোরের স্বত্বাধিকারী অশোক কুমার সাহা বলেন, বিভিন্ন ডিজাইনের পোশাকের মধ্যে ক্রেতাদের এবারের পছন্দ মাসাক্কালি ও বিভিন্ন ডিজাইনের গাউন। সিটি প্লাজা লেডিস টাচ’র বিক্রয়কর্মী ইমরান হোসেন বলেন, গারারা এবারের ঈদে নতুন পোশাক। এটার দিকে তরুণীদের নজর কেড়েছে। শহরের এইচএমএম রোড, কাপুড়িয়াপট্টি, সিটি প্লাজা, জেস টাওয়ার, মুজিব সড়কের অভিজাত শো’রুমগুলো ঘুরে দেখা যায় ঈদের পোশাক কেনার ভিড়। সূর্যের প্রচন্ড তাপ উপেক্ষা করে ক্রেতারা ছুটছেন নিজেদের পছন্দের পোশাক। বিপণীবিতান ভেদে পোশাকের দামের তারতাম্য লক্ষ্য করা গেছে। ‘এবার থ্রি-পিসের বাজার বেশ চড়া’ বলে জানান ক্রেতারা। তারপরও ফ্যাশন সচেতন তরুণীরা পছন্দের পোশাক কিনতে ছুটছেন এক দোকান থেকে অন্য দোকানে।