ডেঙ্গুজ্বরে প্রাণ গেল ডেঙ্গু প্রতিরোধ সেলের সদস্যের

ডেঙ্গুজ্বরে প্রাণ গেল ডেঙ্গু প্রতিরোধ সেলের সদস্যের
সাখাওয়াত ফারহান ||
ডেঙ্গু প্রতিরোধে সরকারি আদেশে ঢাকা এসে ডেঙ্গুজ্বরে আক্রান্ত হয়ে মারা গেলেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের ডেঙ্গু প্রতিরোধ সেলের সদস্য ওমাদারীপুর সদর উপজেলার স্বাস্থ্যসহকারী তপন কুমার মণ্ডল (৩৫)।
বৃহস্পতিবার বিকাল ৩টার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ঢাকার একটি হাসপাতালে তিনি মারা যান।
এই নিয়ে মাদারীপুরে ডেঙ্গুজ্বরে ৭ জনের মৃত্যু হল।
তপন কুমার মণ্ডল মাদারীপুর সদর উপজেলার পেয়ারপুর ইউনিয়নের বড়াইলবাড়ি গ্রামের জদুনাথ মণ্ডলের ছেলে। তিনি মাদারীপুর সদরের স্বাস্থ্যসহকারী ছিলেন। ডেঙ্গু প্রতিরোধ সেলের সদস্য হিসেবে মাদারীপুর থেকে তাকে ঢাকা আনা হয়েছিল।
সিভিল সার্জন অফিস ও পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, মাদারীপুর সদরে কর্মরত স্বাস্থ্যসহকারী তপন কুমার মণ্ডল ১৬ দিন আগে সরকারি আদেশে ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের ৫৮নং ওয়ার্ডে ডেঙ্গু প্রতিরোধের জন্য যান। সেখানে কর্তব্যরত অবস্থায় গত ১১ আগস্ট তিনি ডেঙ্গুজ্বরে আক্রান্ত হন।
ঈদের ছুটিতে বাড়িতে আসলে অসুস্থতা বাড়লে তপন কুমারকে প্রথমে মাদারীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরবর্তী সময়ে উন্নত চিকিৎসার জন্য ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়। তখন তপন কুমারের শরীরে প্লাটিনেটের পরিমাণ ত্রিশ হাজার ছিল।
সেখানে তার অবস্থার অবনতি হলে ঢাকার বাংলাদেশ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখানে বুধবার থেকে আইসিইউতে থাকার পর বৃহস্পতিবার বিকাল ৩টার দিকে তিনি মারা যান।
এই নিয়ে মাদারীপুরে ডেঙ্গুজ্বরে ৭ জনের মৃত্যু হল। তাদের মধ্যে কালকিনি ও শিবচর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন অবস্থায় দুইজন মারা গেছেন। অন্যরা ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ, বরিশাল মেডিকেল কলেজ ও ঢাকার বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।
মাদারীপুর সিভিল সার্জন মো. শফিকুল ইসলাম বলেন, আমাদের সদরের একজন স্বাস্থ্যসহকারী সরকারি দায়িত্বে ঢাকার দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের একটি ওয়ার্ডের ডেঙ্গু প্রতিরোধ করার কাজে নিয়োজিত ছিলেন। সেখানে থাকা অবস্থায় তিনি ডেঙ্গুজ্বরে আক্রান্ত হন। তিনি ঢাকায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান