পরিচ্ছন্নতা খাতে অব্যবস্থাপনার কারনে চরম স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে ঢাকাবাসী

প্রতিবেদক || সৈয়দ মেহেদী হাসান আলভী :

চীনের উহান শহর থেকে মহামারী আকারে ছড়িয়ে পড়া রোগ COVID 19। এটি মূলত করোনা ভাইরাস নামক একধরনের আরএনএ ভাইরাসের কারণে সৃষ্টি হয়। এটি মানুষের শ্বাসতন্ত্রে জটিলতা সৃষ্টি করে। সংক্রমিত ব্যাক্তির হাঁচি, কাশি বা শ্বাসতন্ত্র থেকে নির্গত তরলের মাধমে সুস্থ ব্যক্তি এই ভাইরাস দ্বারা সংক্রমিত হতে পারে। আবার আক্রান্ত ব্যাক্তির সরাসরি সংস্পর্শের মাধ্যমেও এই ভাইরাস সুস্থ মানুষের দেহে আসতে পারে যা পরবতীতে শ্বাসতন্ত্রেকে সংক্রমিত করতে পারে। বাংলাদেশে বর্তমানে করোনা ভাইরাসের কমিউনিটি সংক্রমণ চলছে। IEDCR এর তথ্যমতে দৈনিক গড়ে এক হাজার মানুষ এই ভাইরাস দ্বারা সংক্রমিত হচ্ছেন। ঢাকা মহানগরীতে এই সংক্রমণের হার সবথেকে বেশি। সংক্রমণের হার কমাতে সরকার ইতিমধ্যে প্রচুর ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে। কিন্তু রাজধানীর বেশ কিছু এলাকার বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় বিশেষ কোন ব্যবস্থা লক্ষ করা যায় না। মহানগরীর বেশ কিছু এলাকায় যে সকল পরিচ্ছন্নতাকর্মী বাসার সামনে থেকে গৃহস্থালির বর্জ্য নিয়ে যানতারা তেমন কোনো সুরক্ষা শিকলই মেনে চলেন না। দেশে যখন প্রথম সংক্রমণ শুরু হয় তখন তাদের হাতে গ্লাভস ও পায়ে গাম বুট পড়ে আসতে দেখা গেলেও এখন তার কোন বালাই নেই। বর্জ্য সংগ্রহকারী পরিচ্ছন্নতাকর্মীরা এলাকার প্রতিটি বাসার সামনে থেকে প্রত্যেকের ময়লার ঝুড়ি থেকে নিজ হাতে ময়লা সংগ্রহ করে। এমতাবস্থায় একজন করোনা ভাইরাসে সংক্রমিত ব্যাক্তি যদি ময়লা ফেলতে আসে তবে সুরক্ষার অভাবে একজন পরিচ্ছন্নতাকর্মী সহজেই সংক্রমিত হতে পারে। ফলে সে একজন বাহক রূপে সমগ্র এলাকায় ভাইরাস ছড়িয়ে দিতে পারে। ফলে মহামারী খুব সহজেই তীব্র আকার ধারণ করতে পারে। বিষয়টি অনুধাবন করলে খুব সহজেই বোঝা যায় এই অব্যবস্থাপনার কারনে ঢাকাবাসী তীব্র স্বাস্থ্য ঝুঁকিতে রয়েছে। এবিষয়ে সিটি করপোরেশন থেকে বলা হয় যে তারা সকল পরিচ্ছন্নতাকর্মীকে যথেষ্ট পরিমাণ সুরক্ষা সামগ্রী সরবরাহ করেছেন। কিন্তু এসব সুরক্ষা সামগ্রী ব্যবহারের পুর্ব অভিজ্ঞতা না থাকা এবং গরমের কারনে মানিয়ে নিতে না পারা সহ নানা ধরনের অজুহাত দেখিয়ে পরিচ্ছন্নতাকর্মীরা এগুলো ব্যবহাররে অনিহা প্রদর্শন করছেন। সাধারন জনগণের মতে সরকারকে এ বিষয়ে কঠোর পদক্ষেপ নিতে হবে। সঠিক ব্যবস্থা গ্রহণ না করলে কোন পরিস্থিতির সম্মুখীন হতে চলছে রাজধানীবাসী তার একটি প্রশ্ন থেকেই যায়।