পার্বত্য চট্টগ্রামের খাগড়াছড়ি জেলায় সেনাবাহিনীর সাথে ‘গোলাগুলিতে’ তিনজন নিহত হয়েছে।

প্রতিবেদন।। মুন্সী নাইম রেজভী: সামরিক জনসংযোগ দপ্তর আইএসপিআর-এর পরিচালক আবদুল্লাহ ইবনে জায়িদ বিবিসি বাংলাকে বলেছেন, খাগড়াছড়ি জেলার দীঘিনালায় ইউপিডিএফ প্রসীতপন্থী সন্ত্রাসীদের সাথে সেনা টহলের গুলিবিনিময়ে এ তিনজন নিহত হয়েছে। আইএসপিআর জানিয়েছে, ঘটনাস্থল থেকে তিনটি অস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে। নিরাপত্তাবাহিনীর একটি সূত্র বলছে, সে জায়গায় আরো আহত কিংবা নিহত কেউ আছে কিনা সেটি তল্লাশি করে দেখা হচ্ছে। তাদের ধারণা, সেখানে আরো ভারী অস্ত্র থাকতে পারে। ইউপিডিএফ পাহাড়িদের অন্যতম সংগঠন হিসেবে পরিচিত। তবে নিরাপত্তা বাহিনীর সূত্রগুলো বলছে এই সংগঠনটি সাম্প্রতিক বছরগুলোতে নানা ধরনের অপরাধ তৎপরতায় জড়িয়েছে। বিশ্লেষকদের অনেকেই মনে করেন, সাম্প্রতিক সময়ে পার্বত্য অঞ্চলের ঘটনাগুলো নতুন করে অস্থিরতা তৈরির ইঙ্গিত দিচ্ছে। ইউপিডিএফের প্রতিবাদ
দীঘিনালার ঘটনায় সেনাবাহিনীর বক্তব্যের তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছে ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্র্যাটিক বা ইউপিডিএফের খাগড়াছড়ি জেলা সংগঠক অংগ্য মারমা। সংগঠনটির প্রচার ও প্রকাশনা বিভাগ থেকে নিরন চাকমা স্বাক্ষরিত এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, খাগড়াছড়ির দীঘিনালা উপজেলার কৃপাপুর গ্রাম থেকে নিরাপত্তা বাহিনী তাদের তিনজন সদস্যকে গ্রেফতারের পর ঠাণ্ডা মাথায় গুলি করে হত্যা করেছে। তিন জনের নাম উল্লেখ করে বিবৃতিতে বলা হয়, রবিবার রাত দুটোর দিকে নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা তাদেরকে তুলে নিয়ে যায়। সোমবার সকালে তাদেরকে বিনন্দচুগ নামক পাহাড়ে নিয়ে গিয়ে কথিত ‘গোলাগুলির’ নাটক সাজিয়ে ঠাণ্ডা মাথায় গুলি করে হত্যা করে। প্রকৃতপক্ষে সেখানে নিরাপত্তা বাহিনীর সাথে কারো কোন প্রকার গোলাগুলির ঘটনা সংঘটিত হয়নি। এটি একটি পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড ছাড়া আর কিছুই নয়।” বিবৃতিতে তাদেরকে বিনা অপরাধে গ্রেফতার ও পরে বিচার বহির্ভুতভাবে গুলি করে হত্যার ঘটনাকে মানবাধিকারের চরম লঙ্ঘন বলে উল্লেখ করা হয়েছে। তারা এই ঘটনার নিরপেক্ষ তদন্ত করে দোষীদের শাস্তি প্রদানেরও দাবি জানিয়েছেন। এর আগে গত ১৮ই আগস্ট পার্বত্য জেলা রাঙ্গামাটিতে সেনাবাহিনীর নিয়মিত টহল দলের উপর হামলার একজন সৈন্য নিহত হন। রাঙ্গামাটি রাজস্থলী আর্মি ক্যাম্প থেকে ৪ কিলোমিটার মতো দুরে সকালে গুলির ঘটনাটি ঘটেছে। সকাল ১০ টার দিকে পোয়াইতুখুম নামক এলাকায় একটি নিয়মিত টহল দলের উপর সন্ত্রাসীরা অতর্কিতভাবে গুলিবর্ষণ করে ।।
সূত্র;বি বি সি