শিশু ধর্ষণের শাস্তি মৃত্যুদণ্ড চান রওশন

শিশুদের প্রতি সহিংসতা ও ধর্ষণের অপরাধে সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ড দেওয়ার দাবি জানিয়েছেন জাতীয় সংসদের বিরোধীদলীয় উপনেতা রওশন এরশাদ। গতকাল বৃহস্পতিবার একাদশ জাতীয় সংসদের বাজেট অধিবেশনের (তৃতীয় অধিবেশন) সমাপনী বক্তব্যে রওশন এরশাদ এই দাবি জানান।

রওশন এরশাদ বলেন, এখন স্কুল, মাদ্রাসা কোনো জায়গায় শিশুরা সুরক্ষিত নয়, নিরাপদ নয়। শিক্ষার্থীদের নুসরাতের মতো জীবন দিতে হলে তা ভীষণ লজ্জা ও দুঃখজনক ব্যাপার। দেশে আইন আছে। সে আইনের প্রয়োগ করা প্রয়োজন। কোনো ফাঁক রাখা যাবে না। সরাসরি মৃত্যুদণ্ড দিতে হবে, যাতে শিশুদের নিরাপদ রাখা যায়। তিনি এ জন্য আইনমন্ত্রী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করেন।

উন্নয়ন চাইলে গ্যাসের দাম বাড়বে—প্রধানমন্ত্রীর এমন বক্তব্যের জবাবে রওশন এরশাদ বলেন, ‘আমরা উন্নয়ন চাই, কিন্তু গ্যাসের দাম বাড়াতে চাই না। এটাই আসল কথা। এটা আমার কথা না, জনগণের কথা।’

রওশন এরশাদ বলেন, বাংলাদেশ থেকে বিশ্বের ১৫১টি দেশে ওষুধ রপ্তানি হয়। কিন্তু দেশের বাজারে ভেজাল, নকল ওষুধ বিক্রি হচ্ছে। আদালত অচিরেই মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ বাজার থেকে উঠিয়ে নিতে আদেশ দিয়েছিলেন। কিন্তু তা মানা হয়নি। খাদ্যে ভেজাল বন্ধ হয়নি। বাচ্চাদের খাবারের বিষয়ে বিশেষ সতর্ক থাকতে হবে।

রওশন বলেন, ডেঙ্গু, ম্যালেরিয়া ছড়িয়ে পড়ছে। সন্ধ্যা হতেই মশার কারণে ব্যতিব্যস্ত থাকতে হয়, বাচ্চারা পড়াশোনা করতে পারে না। এ বিষয়ে সতর্ক থাকতে হবে। রওশন বলেন, স্মার্টফোনের ব্যবহার নিয়ে ছেলেমেয়েরা অন্য একটি জগৎ গড়ে তুলছে। তারা মাদকের মতো আসক্ত হয়ে যাচ্ছে। এ অবস্থার উত্তরণের রাস্তা খুঁজতে হবে।

সংবাদকর্মীদের জন্য নবম ওয়েজ বোর্ড দ্রুত বাস্তবায়নের ব্যবস্থা করারও দাবি জানান রওশন এরশাদ।

জাতীয় পার্টির আমলে এরশাদ সরকারের বিভিন্ন উন্নয়নের কথা তুলে ধরে রওশন এরশাদ বলেন, জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান বিরোধীদলীয় নেতা এইচ এম এরশাদ অনেক অসুস্থ। তিনি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। এরশাদের জন্য সবার দোয়া চান রওশন।