সমুদ্র উত্তাল, উপকূলে আম্ফানের প্রভাব শুরু

প্রতিবেদক|| তমাল কিবরিয়া:

বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট ঘূর্ণিঝড় ‘আম্ফান’ উপকূলের খুব কাছাকাছি চলে এসেছে। এর প্রভাবে চট্টগ্রামের উপকূলীয় এলাকায় সকাল থেকে গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি পড়ছে। সাগর উত্তাল হওয়ায় বড় বড় ঢেউ আছড়ে পড়ছে তীরে।

এছাড়া ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্র দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়ার আকারে ২২০ কিলোমিটার পর্যন্ত বৃদ্ধি পাচ্ছে। ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্রের কাছের সাগর খুবই বিক্ষুব্ধ রয়েছে।

এদিকে আবহাওয়া অধিদফতর এরইমধ্যে মোংলা এবং পায়রা সমুদ্রবন্দরে ১০ নম্বর মহাবিপদসংকেত দেখিয়ে যেতে বলেছে। ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে ১০ থেকে ১৫ ফুট জলোচ্ছ্বাস হতে পারে বলেও সতর্ক করা হয়েছে।

আবহাওয়া অধিদফতরের বুলেটিনে জানানো হয়, ঘূর্ণিঝড় ‘আম্ফান’ বুধবার সকাল ৬টায় চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দর থেকে ৫৬৫ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে, কক্সবাজার সমুদ্রবন্দর থেকে ৫৪৫ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে, মোংলা সমুদ্রবন্দর থেকে ৩৯০ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে এবং পায়রা সমুদ্রবন্দর থেকে ৪১০ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে অবস্থান করছিল।

অন্যদিকে মোংলার পশুর নদীতে সময় যতো যাচ্ছে ততই বাতাসের তীব্রতা বাড়ছে। নদীতে বাড়ছে জোয়ারের পানি এবং উত্তাল অবস্থা বিরাজ করছে। এর ফলে আশপাশের নৌযানগুলো নদীর পাড়ে নিরাপদ আশ্রয়ে রাখা হয়েছে। সকাল থেকে ভারী বৃষ্টিপাত এবং দমকা হাওয়াও লক্ষ্য করা গেছে।

এদিকে ভোলার মেঘনাপাড়ের এলাকায় বইছে দমকা হাওয়া। নদীর পানি বাড়তে শুরু করেছে। মানুষের মাঝে উৎকণ্ঠাও বাড়ছে।