টিকটকে স্বল্প পোশাকে নাচের ভিডিও পোস্ট করে বিতর্কে নুসরাত।

প্রতিবেদক || মুজাহিদ হাসানঃ

ফের বিতর্কের মুখে অভিনেত্রী তথা বসিরহাটের সাংসদ নুসরাত জাহান। এ বার স্বল্প পোশাকে টিকটক ভিডিও পোস্ট করে নেটাগরিকদের রোষের মুখে পড়লেন তিনি।
বাবা অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি, তাঁর কেন্দ্র বসিরহাটের অন্তর্গত বাদুড়িয়ায় দিন কয়েক আগে পুলিশ-জনতা খণ্ডযুদ্ধ হয়েছে— সেই পরিস্থিতিতে কী করে নিশ্চিন্তে টিকটক ভিডিও বানিয়ে যাচ্ছেন? তা নিয়ে প্রশ্ন তুললেন নেটাগরিকদের একাংশ।

গত বৃহস্পতিবার টিকটকে একটি ভিডিও পোস্ট করেন নুসরাত। সেখানেই হটপ্যান্ট এবং ক্রপটপে #স্যাভেজ চ্যালেঞ্জে অংশ নেন তিনি। শুধু তাই নয়, একই চ্যালেঞ্জ নিতে ট্যাগ করেন মিমি চক্রবর্তী এবং শ্রাবন্তীকে। এর পরেই শুরু হয় বিতর্ক। কমেন্ট সেকশনে বইতে থাকে সমালোচনার ঝড়।

অনেকেই নুসরাতকে সরাসরি উল্লেখ করে বলেন, “টিকটক করার সময় অনেক আছে ম্যাডাম। এ বার একটু মানুষের পাশে দাঁড়ান।” যদিও বিতর্কের মাঝেই ৫ লক্ষ ১১ হাজার ৬০০ জন মানুষ দেখে ফেলেছেন নুসরাতের টিকটক নাচ। ফেসবুক, ইউটিউব-সহ অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়াতেও এই নাচ এখন ভাইরাল।

যদিও ট্রোলিংকে বিন্দুমাত্র পাত্তা না দিয়ে ফেসবুকে শুক্রবার আরও একটি নাচের ভিডিও পোস্ট করেছেন নুসরাত। সেই ভিডিওর ক্যাপশনে ট্রোলারদের কার্যত বুড়ো আঙুল দেখিয়ে নুসরাত লেখেন, “এক জন শিল্পীর কাজ বিনোদন প্রদান করে যাওয়া। হ্যাপি ট্রোলিং, ট্রোলারস”।

কিছু দিন আগে ইনস্টাগ্রামে রান্নার ভিডিও পোস্ট করেও ট্রোলের মুখে পড়তে হয়েছিল নুসরাতকে। ‘মানুষ না খেয়ে রয়েছেন, আর আপনি জনপ্রতিনিধি হয়ে মুখরোচক রান্নার পোস্ট দিচ্ছেন কী করে’? প্রশ্ন তুলেছিলেন নেটাগরিকদের অনেকেই।

যদিও সে সব ট্রোলিংকে বিশেষ পাত্তা না দিয়ে লকডাউন এর সময় নুসরাত রয়েছেন তাঁর শর্তেই।