ফুলের টবে জাতীয় পতাকা রেখে তোপের মুখে কারিনা-সাইফ।

প্রতিবেদক || মুজাহিদ হাসানঃ

লকডাউনে হোক বা ফিল্মের সেট বিতর্ক সেলিব্রেটিদের নিত্যসঙ্গী। এ বার বাড়ির টবে জাতীয় পতাকা রেখে ট্রোল হলেন কারিনা কপূর খান।

হোম কোয়রান্টিনের ছেলে তৈমুর এবং স্বামী সাইফ আলি খান মেতেছিলেন আঁকায়। বারান্দার দেওয়ালকেই ক্যানভাস বানিয়ে তাতে দিচ্ছিলেন তুলির টান। বাবা-ছেলের ‘পিকাসো অবতার’ দেখে তা সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার না করে থাকতে পারেননি কারিনা। আর তাতেই বাঁধে বিপত্তি।

যে ছবি কারিনা শেয়ার করেছিলেন তাতে দেখা যাচ্ছে, ফুলের টবে আড়াল-আবডাল দিয়ে উঁকি দিচ্ছে ভারতের জাতীয় পতাকা। কেউ যেন সযত্নে পুঁতে রেখেছে।

কিন্তু টবের মধ্যে জাতীয় পতাকা কেন থাকবে? তা নিয়েই প্রশ্ন তুলেন নেটাগরিকদের একাংশ। নিমেষে উড়ে আসতে থাকে একের পর এক নেতিবাচক মন্তব্য। একজন লেখেন, “আমাদের জাতীয় পতাকাকে সম্মানের সঙ্গে রাখুন।” আবার আর একজনের তির্যক মন্তব্য, “আমাদের জাতীয় পতাকা কি টবের মধ্যে বেড়ে উঠবে?” তবে সবাই যে বাঁকা কথা ছুড়ে দিয়েছেন এমনটা নয়। অনেকেই কৌতূহলবশত জানতে চেয়েছে, “ফ্ল্যাগ কেন ওখানে রাখা হয়েছে? এর পেছনে কারণ কী?”

অনেকে যদিও খান পরিবারের হয়েও মন্তব্য করেছেন। একজন যেমন লিখেছেন, “দ্য রিপাবলিক ডে ফ্ল্যাগ ইজ স্টিল দেয়ার”, সঙ্গে হার্ট ইমোজি। আর একজনের বক্তব্য, “এটিকে মোটেও অসম্মান করা বলে না।”

যদিও এই ট্রোলিংকে খুব একটা পাত্তা দেননি খান দম্পতি। কারিনা বা সাইফ কেউই কোনও জবাব দেননি এই সব মন্তব্যের।

ঘরবন্দি হওয়ার পর থেকেই তৈমুরের আঁকা একের পর এক ছবি পোস্ট করে যাচ্ছেন কারিনা। কখনও আবার ‘থ্রো ব্যাক’ ছবি পোস্ট করে মনে করছেন পুরনো দিনের কথা।