উচ্চ তাপমাত্রা : করোনা বিস্তারে বাংলাদেশের জন্য সৃষ্টিকর্তার আশীর্বাদ ।

প্রতিবেদক:মো:শরীফুল আলম সাকিব।

SARS CoV সংক্রমণের ভাইরাসটি শরীরের বিভিন্ন তরল এবং মলমূত্রগুলিতেও সনাক্তযোগ্য। এক গবেষণায় বিভিন্ন তাপমাত্রায় ভাইরাসটির স্থায়িত্ব এবং মসৃণ পৃষ্ঠগুলিতে আপেক্ষিক আর্দ্রতা অধ্যয়ন করা হয়েছিল। মসৃণ পৃষ্ঠের শুকনো ভাইরাসটি 22-25 ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রায় এবং 40-50% এর আপেক্ষিক আর্দ্রতা অর্থাৎ সাধারণ শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত পরিবেশে 5 দিনেরও বেশি সময় ধরে তার কার্যকারিতা বজায় রাখে। তবে, উচ্চতর তাপমাত্রা এবং উচ্চতর আপেক্ষিক আর্দ্রতা (উদাঃ, 38 ডিগ্রি সেন্টিগ্রেড এবং>> 95% এর আপেক্ষিক আর্দ্রতা) এ ভাইরাসের কার্যকারিতা দ্রুত (> 3 লগ 10) হারিয়েছিল। কম তাপমাত্রা এবং কম আর্দ্রতার পরিবেশে SARS করোনা ভাইরাসটি আরও বেশি স্থিতিশীল (বসন্তের সময় এবং শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত পরিবেশে), যেমন হংকংয়ের মতো অঞ্চল। এটি আরও বলা যায় যে, গ্রীষ্মমন্ডলীয় অঞ্চলে কিছু এশিয়ান দেশগুলিতে (মালয়েশিয়া, ইন্দোনেশিয়া বা থাইল্যান্ড) উচ্চ তাপমাত্রা এবং উচ্চ আপেক্ষিক আর্দ্রতার পরিবেশে তাই SARS করোনার কোনো প্রকোপ নেই?

পরিশেষে, উচ্চ তাপমাত্রা বাংলাদেশের জন্যও আশীর্বাদ ।
সূত্র:www.hindawi.com