জাপানে সেরা তরুণ বিজ্ঞানী বাংলাদেশের ছেলে!!

প্রতিবেদক || মোঃ হাসিবুর রহমান :

দেশের তরুণ প্রজন্ম দীপ্ত গতিতে এগিয়ে যাচ্ছে আগামীর পথে।তারই ফলপ্রসূ হিসেবে এই প্রথমবার তরুণ বিজ্ঞানী পুরস্কার পেলেন বাংলাদেশের ছেলে ডা. আরিফ হোসেন।

প্রথমবারের মতো কোনো বিদেশিকে এই পুরস্কারে ভূষিত করলো জাপান।

জাপানের সেরা তরুণ বিজ্ঞানী নির্বাচিত হয়েছেন বাংলাদেশের ডা. আরিফ হোসেন। গত ২৪ অক্টোবর তাকে এই পুরস্কারে ভূষিত করে জাপানিজ সোসাইটি অব ইনহেরিটেড মেটাবোলিক ডিজঅর্ডার।

প্রতিবছর জাপানিজ সোসাইটি অব ইনহেরিটেড মেটাবোলিক ডিজঅর্ডার’স সেরা জাপানিজ তরুণ বিজ্ঞানী নির্বাচন করে থাকে। লাইসোসোমাল রোগের চিকিৎসা ব্যবস্থা উদ্ভাবনের জন্য এ বছর জাপানের সেরা তরুণ বিজ্ঞানী হিসেবে নির্বাচিত হন বাংলাদেশের ডা. আরিফ হোসেন।

এই প্রথমবার জাপানের ৬১ বছরের ইতিহাসে এই প্রথমবার কোনো বিদেশিকে এই পুরস্কারের জন্য নির্বাচন করা হয়েছে।

পুরস্কার পাওয়ার পর গণমাধ্যমকে ডা. আরিফ হোসেন বলেন, “আমি অনেক আনন্দিত। এটা আমার ও বাংলাদেশের জন্য একটি অবিস্মরণীয় ঘটনা।”

ডা. আরিফ হোসেনের জন্ম গোপালগঞ্জের কাশিয়ানীর ভাটিয়াপাড়ার খুব সাধারণ পরিবারে। ১১ ভাইবোনের মধ্যে ডা. আরিফ হোসেন সবার ছোট। তিনি গ্রামের স্কুলে এসএসসি পর্যন্ত পড়াশোনা করেন। তারপর ঢাকার মিরপুর বাংলা কলেজ থেকে উচ্চমাধ্যমিক পাস করে রাজশাহী মেডিকেল কলেজে ভর্তি হন। সেখান থেকে প্রথমে এমবিবিএস পাস করে একই প্রতিষ্ঠান থেকে শিশু বিভাগে পোস্ট গ্রাজুয়েশন করেন।

ডা. আরিফ হোসেন জাপানের ওসাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন করেন। পরে তিনি শিশু নিউরো-মেটাবলিক রোগে ক্লিনিক্যাল ফেলোশিপও করেন।

বর্তমানে তিনি নিউরো-মেটাবলিক রোগের ওপর উচ্চতর ডিগ্রি নিয়ে ওই রোগের বিশেষজ্ঞ হিসেবে জাপানে সিনিয়র গবেষক হিসেবে কর্মরত রয়েছেন। ভবিষ্যতে বাংলাদেশের চিকিৎসা ব্যবস্থায় ডা.আরিফ হোসেন এর এই উদ্ভাবন এবং পরিশ্রম কাজে আসবে বলে আশা করেন তিনি।