ভারতে করোনামুক্ত ৩৮৮ জেলা।

প্রতিবেদক || মুজাহিদ হাসানঃ

ভারতজুড়ে চলছে লকডাউন। কিন্তু এর মধ্যে করোনা সংক্রমণের হার বেড়ে চললেও রয়েছে কিছুটা স্বস্তির খবর। ভরতের ৯০ জেলায় অন্তত ১৪ দিনে নতুন কোনো আক্রান্তের খবর নেই। এর মধ্যে আবার ১২ জেলায় গত ২৮ দিন কেউ নতুন করে সংক্রমিত হননি। সব মিলে ভারতে এখন ৩৮৮ জেলা করোনামুক্ত। বাকি ৩৩২ জেলায় করোনার সংক্রমণ রয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২৩ এপ্রিল) এ তথ্য দিয়েছে দেশটির কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।

এদিকে ভারতে করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ২১ হাজার ছাড়িয়েছে। বৃহস্পতিবার বিকেলে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের দেয়া পরিসংখ্যান অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করো করোনা সংক্রমণ ধরা পড়েছে ১২২৯ জনের। এই নিয়ে দেশে মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২১ হাজার ৭০০। সংক্রমণ বৃদ্ধির হারের ভিত্তিতে এখনও পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে বলেই মনে করছেন ভারতের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।

তবে উদ্বেগ রয়েছে করোনায় মৃতের সংখ্যা বৃদ্ধি নিয়ে। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের হিসেবে বৃহস্পতিবার বিকেল থেকে গত ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছেন ৩৪ জন। সারাদেশে মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৬৮৬। এর মধ্যে শুধু মহারাষ্ট্রেই মারা গেছেন ২৬৯ জন। গুজরাটে মৃতের সংখ্যা ১০৩, মধ্যপ্রদেশে ৮০। করোনায় ভরতের মধ্যে সবচেয়ে খারাপ মহারাষ্ট্রের পরিস্থিতি। প্রদেশটিতে মোট আক্রান্ত ৫৬৫২। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৪৩১, সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৭৮৯ জন। এর পরেই রয়েছে গুজরাট। সেখানে আক্রান্ত হয়েছেন দুই হাজার ৪০৭ জন। তৃতীয় স্থানে রয়েছে দিল্লি। সেখানে সংক্রমণের কবলে পড়েছেন দুই হাজার ২৪৮ জন। সংক্রমণের গণ্ডি দেড় হাজার ছাপিয়ে গেছে মধ্যপ্রদেশ (১৫৯২), রাজস্থান (১৮৯০) ও তামিলনাড়ুতেও (১৬২৯)। ১ হাজার ৪৪৯ জন সংক্রমিত হয়েছেন উত্তরপ্রদেশে। তেলঙ্গানায় করোনা আক্রান্ত ৯৪৫ জন।

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, তেলঙ্গানায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৪৫৬। কেন্দ্রের হিসাবে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৩৩ জন। মারা গেছেন ১৫ জন। এছাড়া চিকিৎসায় সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৭৯ জন। যদিও রাজ্য সরকারের দেয়া হিসাবে সক্রিয় করোনা রোগী রয়েছেন ৩৩৪। নতুন আক্রান্ত হয়েছেন ৫৮ এবং মারা গেছেন ১৫ জন।