রাজের মিউজিক ভিডিও বিভ্রাট।

প্রতিবেদক || মুজাহিদ হাসানঃ

শর্ট ফিল্ম, মিউজিক ভিডিও তৈরির হিড়িক পড়েছে টলিউডে। দুঃসময়ে মানুষের পাশে থাকার বার্তা দিতে এই রাস্তাই বেছে নিয়েছেন তারকারা। তবে এই ভার্চুয়াল বার্তা মানুষকে কতটা সাহায্য করবে তা নিশ্চিত না হলেও, মুখ্যমন্ত্রীর গুডবুকে উদ্যোগকারীরা থাকবেনই। গত সোমবার রাজ চক্রবর্তী পরিচালিত একটি মিউজিক ভিডিয়ো ইউটিউবে আপলোড করা হয়। যেখানে যিশু সেনগুপ্ত, আবীর চট্টোপাধ্যায়, অঙ্কুশ, নুসরত জাহান, শুভশ্রী, পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়, অনির্বাণ ভট্টাচার্যের মতো তারকারা রয়েছেন। সর্বোপরি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের একটি বার্তা রয়েছে সেখানে। সেই ভিডিও নিয়েই উঠেছে কপিরাইটের অভিযোগ। যে কারণে ইউটিউব থেকে ভিডিয়োটি সরিয়ে দেওয়া হয়। শুক্রবার সকাল পর্যন্ত ভিডিওটি দেখা যাচ্ছিল না।

এই মিউজিক ভিডিওয় কলকাতা শহরের কিছু স্টক শট ব্যবহার করা হয়েছিল। সেগুলি কপিরাইট ছাড়াই ব্যবহার করা হয়েছে বলে, অভিযোগ করেন এক ব্যক্তি। রাজ ওই অভিযোগকারীর সঙ্গে যোগাযোগ করেন। শেষ পর্যন্ত টাকা দিয়ে বিষয়টির নিষ্পত্তি হয়। শুক্রবার দুপুরের পর থেকে ফের ভিডিওটি চালু হয়। মানুষের পাশে থাকার বার্তা দেওয়ার জন্য যে উদ্যোগ, সেখানে এমন ঘটনা কি কাম্য? বিশেষত যেখানে মুখ্যমন্ত্রীর নাম জড়িত। রাজের বক্তব্য, ‘‘আমরা জানতাম না ওই ফুটেজের সঙ্গে কপিরাইট জড়িত। তা হলে সেই মতো ব্যবস্থা নিতাম। ওই ব্যক্তিকে অনুরোধ করেছিলাম অভিযোগ তুলে নিতে। আমরা ওর নাম ভিডিও কার্টেসিতে দিয়ে দিতাম। কিন্তু উনি টাকা দাবি করেন। এই ভিডিওটি সকলেই বিনা পারিশ্রমিকে করেছে। কিন্তু উনি রাজি না হওয়ায় আমরা প্রাপ্য অর্থ দিয়ে দিই। এখন আর কোনও সমস্যা নেই।’’

সমস্যা মিটে গেলেও, এই বিভ্রাট কিন্তু উদ্যোগে খানিকটা হলেও চোনা ফেলে দিল!