সোস্যাল মিডিয়ায় ফেক একাউন্ট নিয়ে বিরম্বনার শিকার দিনকে দিন বেড়েই চলছে।

ভুয়া ফেসবুক আইডি নিয়ে প্রায়ই বিড়ম্বনার শিকার হন বিভিন্ন জনপ্রিয় ও রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব থেকে শুরু করে প্রয় বিভিন্নস্তর এর জনগন।
শুধু তাই নয় সোস্যাল মিডিয়ার নেতিবাচক ব্যবহার ফলে প্রতারিত হচ্ছে সমাজ তথা সমাজের বিভিন্নস্তর এর জনগন।

তবে তথ্যপ্রযুক্তি বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ফেসবুকে ভুয়া আইডি খোলা ও অন্যকে প্রতারণা করাটা ব্যবহারকারীর খারাপ দিক; এটি ফেসবুকের খারাপ দিক নয়। ভুয়া আইডির বিড়ম্বনা থেকে স্বস্তি পেতে বন্ধুত্বের অনুরোধগুলো ভালো করে যাচাই-বাছাই করে দেখা উচিত।

তবে সে দিক থেকে –
সংশোধিত তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি আইনের ৫৭ (১) ধারা লঙ্ঘন করলে ১৪ বছর পর্যন্ত কারাদণ্ডের বিধান আছে এবং এক কোটি টাকা জরিমানাও হতে পারে।
কেউ ভুয়া আইডির কারণে প্রতারণার শিকার হলে তিনি আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কাছে যেতে পারেন এবং সহোযোগিতায় নিতে পারেন!