ঘটনা ছিল কয়েক মাসের আগের। সোশ্যাল মিডিয়ায় এক ভিডিও ভাইরাল হয়। যেখানে দেখা যায় রাস্তায় ধারে বসে কয়েকজন কাশ্মীরি বিক্রেতা নিজের মতো করে ব্যবসা করছিলেন। আর আচমকা তাঁদের এসে মারধর করতে শুরু করেন কয়েকজন। মুহূর্তে ছুটে আসেন আশেপাশের ব্যবসায়ীরা। হাত আগলে বাঁচিয়ে নেন কাশ্মীরিদের। এই ছবি ছিল বিজেপি শাসিত যোগীরাজ্যের। পুলওয়ামায় সেনা কনভয়ে পাকিস্তানি জঙ্গিদের হামলার পর এই পরিস্থিতির ছবি ভেসে ওঠে। এরপর কাশ্মীরে ৩৭০ ধারা তুলে নেওয়ার সিদ্ধান্ত সরকার নিতেই এবার নড়েচড়ে বসেছে যোগী প্রশাসন।

১৪৪ ধারা জারি নয়ডায়! কাশ্মীরিদের নিয়ে জরুরি পদক্ষেপ প্রশাসনের

গোটা উত্তরপ্রদেশের প্রশাসন এই মুহূর্তে সতর্কতায় রয়েছে। উত্তরপ্রদেশের বিভিন্ন প্রান্তে বসবাসকারী কাশ্মীরিরা যেন সুরক্ষিত থাকেন , তা নিশ্চিত করতেই প্রশাসনের তরফে একাধিক পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। নয়ডায় জারি করা হয়েছে ১৪৪ ধারা। সামনেই জন্মাষ্টমী, বকরি ইদ আর ১৫ অগাস্টের আগে , গোটা এলাকার পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতেই যোগী প্রশাসনের তরফে এমন পদক্ষেপ নেওয়া হয়। মেরঠের আইজি জানান, নয়ডা, মেরঠ, গাজিয়াবাদে প্রচুর কাশ্মীরি পড়ুয়া রয়েছেন। আর তাঁদের নিরাপত্তা সুনিশ্চিক করতে বদ্ধপরিকর প্রশাসন।

এদিকে, আলিগড় মুসলিম বিশ্ববিদ্য়ালয়ের তরফে কাশ্মীরি পড়ুয়াদের জন্য বিশেষ নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। তাঁদের ক্যাম্পাস ছেড়ে যেতে বারণ করা হয়েছে। প্রসঙ্গত , এই মুহূর্তে আলিগড় বিশ্ববিদ্যালয়ে ৭০০ জন কাশ্মীরি পড়ুয়া রয়েছেন।